Archive for March, 2020

“গর্ব পতন”

ভালবাসতে বাসতে একটা লাজুক লতা কুড়িয়ে এনেছিলাম আমি!
সে অনেককাল আগের কথা,
সে আমার অন্য জীবনের কথা!
আমার পড়ার টেবিলের পাশ দিয়ে হেটে যাওয়া ল….ম্বা বারান্দা;
সে বারান্দার ধার ঘিরে ছিল লোহার গ্রিল,
চারকোনা খোপ খোপ গ্রিল;
আমার তেমনটাই মনে আছে,
যেমনটা এখন আমার ঘরের দেয়াল!
২৪ ঘন্টা আমি এখন যেখানে বাসকরি!
কিন্তু সে আমার অন্য জীবন…

একটা মাটির ভাড়ে লাজুকলতা মাটিতে ঢেকে গ্রিল গলে সুতোয় এটে লাগিয়ে দিলাম আমি!
ভালবাসার লাজুক লতা আমার!
আমি পড়ার ফাঁকে উকি দেই,
সময়ে অসময়ে হাত বুলাই!
লাজুক লতা বাড়ে,
বাড়ে আমার ভালবাসার শিহরণ!
লাজুক লতা বড় হয়,
বড় হয় আমার ভালবাসার দর্প!
লাজুক লতায় ফুল এল একবার..
ওই প্রথম আর ওই শেষ!
আমি রোজ যত্ন করি তার,
জল দেই, খুঁজে আনি সার!
আল্লাদে যেন বাগ বাগ হয় আমার লাজুক লতা!
লতা ভর্তি কত ফুল…
কি সুন্দর গাড়ো ম্যাজেন্টা রং ধরা তার গায়ে!
সবুজ চিনন পাতা, আর পাতার ভাজে শক্ত ধারাল কাঁটা!
কাঁটার ব্যাথা ভাবায় না আমায় কখনো!
আমি আরো ভালবাসি….
ভালবাসতে বাসতে মরে যাই যেন….
তবুও ভালবাসতেই থাকি!
লাজুক লতার ফুল, পাতা, কাঁটা, সবটাই…
সবকিছু!

সেবার ছুটি হল আমার।
লম্বা….ছুটি!
লাজুক লতা নিয়ে গেলাম না বাড়ি ভয়ে!
অনেক লম্বা পথ, যদি ভেঙ্গে যায়! যদি না বাঁচে আর!
ভাবলাম এত সুন্দর লতানো গাছ…
কেউ না কেউ নিশ্চই পানি দেবে!
বাঁচিয়ে রাখবে কেউ নিশ্চয়,
বেঁচে থাকবে ভালবাসা আমার!

কিন্তু যখন ফিরলাম…
দেখি শুঁকিয়ে কাঁঠ হয়ে গেছে আমার ভালবাসা!
লোহার গরাদে গলানো লতার রং যেন আর আলাদা করা যায়না!
সে মরে গেছে।
আমিই তাকে মেরে ফেলেছি!
রেখে এসেছি ভালবাসার গর্বে!
অবহেলা ভেবে শোধই নিল বোধহয়!
সে রইল না আর….

লতা কি আর ভালবাসা খায়!
সে তো খায় জল আর কাঁদা…
ভালবাসার ভরসায় রেখে এসেছি তাকে!
তাই সে আর থাকেনি!
আমিই তাকে মেরে ফেলেছি,
আমার নিজের হাতে!

০৩.২৬.২০১৯